ডাকসুতে শোভনের পরাজয়ের ৫ কারণ

0
15

দীর্ঘ ২৮ বছর পর নির্বাচন হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু)। এতে ভিপি পদে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভন পরাজিত হয়েছেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরের কাছে।

ছাত্রলীগ সভাপতির এ পরাজয় প্রথমে মেনে না নিলেও পরে মেনে নিয়েছে সংগঠনটি। ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন নিজে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে নবনির্বাচিত ভিপি কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এ সময় দুজনকে কোলাকুলি করতেও দেখা গেছে।

এর আগে ছাত্রলীগ সভাপতির পরাজয়ের কারণে ডাকসু নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করেন।

সোমবার অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে সহসভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হওয়া নুরুল হক নুর ভোট পেয়েছেন ১১ হাজার ৬২টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট।

ভিপি পদে ছাত্রলীগ সভাপতির এমন পরাজয়ে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখান। ছাত্রলীগের সাধারণ নেতাকর্মীরা সংগঠনের সভাপতির এমন পরাজয়ের ৫টি কারণ দেখছেন। তারা জানান, ভিপি পদে শোভনের পরাজয়ের নেপথ্যে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ গ্রুপিং-লবিং, কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের পিছিয়ে থাকা, ভোট চলাকালে কুয়েত মৈত্রী হলে ‘জাল ব্যালট পেপার’ উদ্ধার ও নুরের ওপর ছাত্রলীগের হামলা হওয়ার অপপ্রচার এবং সংবাদমাধ্যমে নুরকে হাইলাইট করা।

নাম না প্রকাশের শর্তে অনেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী বলেন, টানা এক দশকেরও বেশি সময় ধরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকায় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগবিরোধী একটি বিশাল গ্রুপের তৈরি হয়েছে। যার প্রভাব এই ডাকসু নির্বাচনের ব্যালটে পড়েছে।

উল্লেখ্য, অনিয়মের অভিযোগ তুলে ছাত্রলীগ ছাড়া সব প্যানেলের ভোট বর্জনের ডাকসু নির্বাচনে দুটি পদ ছাড়া সব পদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রলীগ সমর্থিত প্যানেল। ভিপি পদে জয়ী হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা নুরুল হক নুর। আর সমাজসেবা সম্পাদক পদেও জয়ী হয়েছেন কোটা আন্দোলনের আরেক নেতা। বাদবাকি ২০টি পদে জয়ী হয়েছে ছাত্রলীগ। ছাত্রী হলগুলো ছাড়াও অন্য হলে ছাত্রলীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here